নাক ডাকার সমস্যা চিরতরে দূর করে দিন ২টি জাদুকরী পানীয় দিয়ে

নাক ডাকার সমস্যা আপাত দৃষ্টিতে খুব বেশি ক্ষতিকর মনে না হলেও এটি আসলে বেশ খারাপ একটি সমস্যা। এটিকে হৃদরোগের লক্ষণ হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। এছাড়া এই নাক ডাকার সমস্যা যে বেশ বিরক্তিকর ও বিব্রতকর, তা নতুন করে বলে দিতে হয় না। যিনি নাকডাকেন। তিনি না বুঝলেও পাশে থাকা মানুষটির ঘুম হারাম হয়ে যায়।তাই নাক ডাকা …

রাতে গলা শুকিয়ে যায় ? গোপনে বাসা বাঁধছে যেসব রোগ

রাতে গলা শুকিয়ে যায় ? গোপনে বাসা বাঁধছে যেসব রোগ রাতের বেলা ঘুমানোর জন্য ছটফট করলেও ঠিকমতো ঘুম আসে না, চোখ বুজলেই গলা শুকিয়ে কাঠ হয়ে যায়, মনে হয় যেন সারাদিনে মুখে পানি পড়েনি। প্রায়ই এমন হচ্ছে? তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে দেরি করবেন না। তবুও প্রাথমিকভাবে জেনে নেওয়া দরকার, ঠিক কী কী কারণে এই উপসর্গগুলো …

গলার ক্যান্সারের প্রথম লক্ষণ হতে পারে মুখে ঘা

ক্যান্সারে আক্রান্তক কোনো ব্যক্তিকে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচানো সম্ভব। কিন্তু তার জন্য রোগটি প্রাথমিক পর্যায়ে শনাক্ত করা খুবই জরুরী। গলার ক্যান্সার বহু মানুষের মধ্যে দেখা যায়। তবে জটিল রোগে বেশি আক্রান্ত হন পুরুষেরা। গলার ক্যান্সারের ফলে রয়েছে মৃত্যুর ঝুঁকিও। তবে, প্রথম পর্যায়ে ক্যান্সার ধরা পড়লে, চিকিৎসা তাড়াতাড়ি শুরু হলে সেরে ওঠার সম্ভাবনাও থাকে। এর জন্য …

স্বরভঙ্গ গলাভাঙ্গা এবং তার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

       স্বরভঙ্গ  (Laryngitis, Hoarseness)  এবং  তার হোমিওপ্যাথিক  চিকিৎসা Laryngitis, Hoarseness (স্বরভঙ্গ  এবং  তজ্জনিত  কাশি) :- ধুমপান,  সর্দি-কাশি,  হঠাৎ  আবহাওয়ার পরিবর্তন,  উচ্চস্বরে  বেশী  কথা  বলা,  নিঃশ্বাসের  সাথে  বিষাক্ত  ধোয়া  গ্রহন  করা  প্রভৃতি  কারণে  ল্যারিঞ্জাইটিস  হয়ে  থাকে।  কাজেই  ঔষধ  খাওয়ার  সাথে  সাথে  কথা বলা  বন্ধ  রাখতে  হবে,  গরম  চা-কফি  খাওয়া  উচিত  এবং  সিগারেট  বা  অন্যান্য  ধোয়া  থেকে  দুরে  থাকতে  হবে।  ভাত  রান্না  বা  পানি  সিদ্ধ  করার  সময়  যে  গরম বাষপ  উঠে  সেগুলো  নিঃশ্বাসের  সাথে  টেনে  নিলে  উপকার  পাওয়া  যাবে।  তবে  কাগজ  বাঁকা  করে  এমনভাবে  নিতে  হবে  যাতে  গরম  বাষপ  চোখের  মধ্যে  না  লাগে। Causticum :- গলাভাঙ্গার  এক  নাম্বার  ঔষধ  হলো  কষ্টিকাম।  কষ্টিকামের  লক্ষণ  হলো  সর্দি  লেগে  বা  আবহাওয়া  পরিবর্তনের  ফলে  সৃষ্টি  হওয়া  গলাভাঙা।  এতে শুকনো  কাশি  থাকতে  পারে  এবং  মুখের  ভেতরটা  লাল  হয়ে  যায়।  গলাভাঙ্গার  সাথে  যদি  একটু  জ্বালা-পোড়া  ভাব  থাকে  তবে  নিশ্চিনেত  কষ্টিকাম  খেতে  পারেন। কষ্টিকামের  কাশি  ঠান্ডা  পানি  খেলে  কমে  যায়।  কষ্টিকামের  গলাভাঙা  সাধারণত  সকালে  শুরু  হয়। Spongia  tosta :  গলাভাঙার  সাথে  যদি  কাশি  থাকে  এবং    কাশিতে  যদি  ঢোলের  মতো  আওয়াজ  হয়  কিংবা  কুকুরের  ঘেউ  ঘেউয়ের  মতো  শব্দ  হয়,  তবে সপঞ্জিয়া  টোস্টা  ঔষধটি  আপনাকে  মুক্তি  দেবে। Hepar  Sulphur :- স্বরভঙ্গের  সাথে  যদি  কাশি  থাকে  এবং  কাশির  সাথে  কফ  বের  হয়,  তবে  হিপার  সালফার  ঔষধটি  খেতে  পারেন।  হিপারের  কাশি  ঠান্ডা বাতাসে  বৃদ্ধি  পায়  অর্থাৎ  ঠান্ডা  বাতাস  লাগলে  যদি  কাশি  বৃদ্ধি  পায়  তবে  হিপার  সালফারই  হবে  আপনার  সেরা  ঔষধ। Aconitum  napellus :- যে-কোন  রোগই  হউক (জ্বর-কাশি-ডায়েরিয়া-আমাশয়-পেট ব্যথা-মাথা-ব্যথা প্রভৃতি),  যদি  হঠাৎ  করে  মারাত্মক  রূপে  দেখা  দেয়,  তবে একোনাইট  হলো  তার  এক  নাম্বার  ঔষধ।  গলাভাঙাও  যদি  তেমনি  হঠাৎ  করে  মারাত্মকরূপে  দেখা  দেয়,  তবে  একোনাইট  সেবন  করুন। Phosphorus :- গলাভাঙার  সাথে  যদি  কথা  বললে  বা  কাশি  দিলে  গলায়  প্রচণ্ড  ব্যথা  হয়  অথবা  জ্বলে-পুড়ে  যায়,  তবে  ফসফরাস  খেতে  হবে। Argentum  metallicum :- কয়েকদিনের  পুরনো  গলাভাঙ্গায়  আজেন্টাম  মেটালিকাম  খেতে  পারেন।  বিশেষত  গায়ক-গায়িকা-ক্যানভাসার  এবং  বক্তৃতা-ভাষণ  দিয়ে বেড়ানো  লোকদের  স্বরভঙ্গে  এটি  বিশেষ  উপকারী। Thuja  occidentalis :  যে-কোন  টিকা (বিসিজি,  ডিপিটি,  হাম,  পোলিও  ইত্যাদি)  নেওয়ার  কারণে  স্বরভঙ্গ  হলে  তাতে  থুজা  একটি  অতুলনীয়  ঔষধ। প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ জামান হোমিও হল মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট,চাঁদপুর 01711-943435 ইমো 01919-943435 চাঁদপুর হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ইমেইল-dr.zaman.polash@gmail.com ওয়েব সাইট –www.zamanhomeo.com  

শুষ্ক মুখের কারণ ও করণীয়

মুখের অভ্যন্তরভাগ যখন স্বাভাবিক অবস্থায় আর্দ্র থাকে না, তখন এ অবস্থাকে শুষ্ক মুখ বা জেরোসটোমিয়া বলা হয়। শুষ্ক মুখ অত্যন্ত বিড়ম্বনাকর এক অনুভূতি। এটি কোনোভাবেই অবহেলার বিষয় নয়। কারণ শুষ্ক মুখ যেমন বিভিন্ন রোগের কারণে বা ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে হতে পারে, তেমনি একইভাবে শুষ্ক মুখের কারণে মুখের অভ্যন্তরে নানাবিধ রোগ সৃষ্টি হতে পারে। লালা গ্রন্থিগুলোর …

স্বরভঙ্গ গলাভাঙ্গা এবং তার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

 ডাঃ  বশীর  মাহমুদ  ইলিয়াস **প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ        স্বরভঙ্গ  (Laryngitis, Hoarseness)  এবং  তার হোমিওপ্যাথিক  চিকিৎসা Laryngitis,Hoarseness (স্বরভঙ্গ  এবং  তজ্জনিত  কাশি) :- ধুমপান,  সর্দি-কাশি,  হঠাৎ  আবহাওয়ার পরিবর্তন,  উচ্চস্বরে  বেশী  কথা  বলা,  নিঃশ্বাসের  সাথে  বিষাক্ত  ধোয়া  গ্রহন  করা  প্রভৃতি  কারণে  ল্যারিঞ্জাইটিস  হয়ে  থাকে।  কাজেই  ঔষধ  খাওয়ার  সাথে  সাথে  কথা বলা  বন্ধ  রাখতে  হবে,  গরম  চা-কফি  খাওয়া  উচিত  এবং  সিগারেট  বা  অন্যান্য  ধোয়া  থেকে  দুরে  থাকতে  হবে।  ভাত  রান্না  বা  পানি  সিদ্ধ  করার  সময়  যে  গরম বাষপ  উঠে  সেগুলো  নিঃশ্বাসের  সাথে  টেনে  নিলে  উপকার  পাওয়া  যাবে।  তবে  কাগজ  বাঁকা  করে  এমনভাবে  নিতে  হবে  যাতে  গরম  বাষপ  চোখের  মধ্যে  না  লাগে। Causticum :- গলাভাঙ্গার  এক  নাম্বার  ঔষধ  হলো  কষ্টিকাম।  কষ্টিকামের  লক্ষণ  হলো  সর্দি  লেগে  বা  আবহাওয়া  পরিবর্তনের  ফলে  সৃষ্টি  হওয়া  গলাভাঙা।  এতে শুকনো  কাশি  থাকতে  পারে  এবং  মুখের  ভেতরটা  লাল  হয়ে  যায়।  গলাভাঙ্গার  সাথে  যদি  একটু  জ্বালা-পোড়া  ভাব  থাকে  তবে  নিশ্চিনেত  কষ্টিকাম  খেতে  পারেন। কষ্টিকামের  কাশি  ঠান্ডা  পানি  খেলে  কমে  যায়।  কষ্টিকামের  গলাভাঙা  সাধারণত  সকালে  শুরু  হয়। Spongia  tosta :  গলাভাঙার  সাথে  যদি  কাশি  থাকে  এবং    কাশিতে  যদি  ঢোলের  মতো  আওয়াজ  হয়  কিংবা  কুকুরের  ঘেউ  ঘেউয়ের  মতো  শব্দ  হয়,  তবে সপঞ্জিয়া  টোস্টা  ঔষধটি  আপনাকে  মুক্তি  দেবে। Hepar  Sulphur :- স্বরভঙ্গের  সাথে  যদি  কাশি  থাকে  এবং  কাশির  সাথে  কফ  বের  হয়,  তবে  হিপার  সালফার  ঔষধটি  খেতে  পারেন।  হিপারের  কাশি  ঠান্ডা বাতাসে  বৃদ্ধি  পায়  অর্থাৎ  ঠান্ডা  বাতাস  লাগলে  যদি  কাশি  বৃদ্ধি  পায়  তবে  হিপার  সালফারই  হবে  আপনার  সেরা  ঔষধ। Aconitum  napellus :- যে-কোন  রোগই  হউক (জ্বর-কাশি-ডায়েরিয়া-আমাশয়-পেট ব্যথা-মাথা-ব্যথা প্রভৃতি),  যদি  হঠাৎ  করে  মারাত্মক  রূপে  দেখা  দেয়,  তবে একোনাইট  হলো  তার  এক  নাম্বার  ঔষধ।  গলাভাঙাও  যদি  তেমনি  হঠাৎ  করে  মারাত্মকরূপে  দেখা  দেয়,  তবে  একোনাইট  সেবন  করুন। Phosphorus :- গলাভাঙার  সাথে  যদি  কথা  বললে  বা  কাশি  দিলে  গলায়  প্রচণ্ড  ব্যথা  হয়  অথবা  জ্বলে-পুড়ে  যায়,  তবে  ফসফরাস  খেতে  হবে। Argentum  metallicum :- কয়েকদিনের  পুরনো  গলাভাঙ্গায়  আজেন্টাম  মেটালিকাম  খেতে  পারেন।  বিশেষত  গায়ক-গায়িকা-ক্যানভাসার  এবং  বক্তৃতা-ভাষণ  দিয়ে বেড়ানো  লোকদের  স্বরভঙ্গে  এটি  বিশেষ  উপকারী। Thuja  occidentalis : যে কোন  টিকা(বিসিজি,  ডিপিটি,  হাম,  পোলিও  ইত্যাদি)  নেওয়ার  কারণে  স্বরভঙ্গ  হলে  তাতে  থুজা একটি  অতুলনীয়  ঔষধ। প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ জামান হোমিও হল মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট,চাঁদপুর 01711-943435 // 01670908547 ইমো 01919-943435 চাঁদপুর হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ইমেইল-dr.zaman.polash@gmail.com ওয়েব সাইট –www.zamanhomeo.com ★ পোস্ট ভাল লাগলে লাইক ★ শেয়ার করে পেইজে একটিভ থাকুন।  ফেসবুক পেইজে লাইক দিন  https://www.facebook.com/ZamanHomeoHall  

টনসিল সমস্যায় হোমিও চিকিৎসা

টনসিল সমস্যায় হোমিও চিকিৎসা টনসিল আক্রান্তের কারণসমূহ * ডে-কেয়ার সেন্টারের ছোট ছেলেমেয়েরা এবং শিক্ষক উভয় আক্রান্ত হতে পারে * জনাকীর্ণ স্থানে বসবাস, কাজ, এবং অবস্থান করলে * ধূমপান * ডায়াবেটিসের মতো দীর্ঘস্থায়ী অসুখ থাকলে লক্ষণসমূহ গিলতে কষ্ট হয়, কানে ব্যথা, জ্বর এবং ঠাণ্ডা অনুভূত হওয়া, মাথা ব্যথা, গলায় ক্ষত, চোয়াল এবং গলায় স্পর্শকাতরতা, গলার দুই …

শিশুর টনসিল ও এডিনয়েডের অসুখ

  শিশুর টনসিল ও এডিনয়েডের অসুখ কনটেন্টটিতে সমস্যা বা রোগের কারণ, রোগের লক্ষণ ও উপসর্গ, রোগ নির্ণয়ে করণীয়, রোগের জটিলতা, চিকিৎসা বা আরোগ্যলাভের উপায় সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়েছে। টনসিল ও এডিনয়েড শিশুদের গলার একটি সাধারণ সমস্যা। এ রোগে আমাদের দেশে অনেক শিশুই ভুগে থাকে। শীতের সময় এ রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পায়। টনসিল ও এডিনয়েড এক …

Cough (কাশি) হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা:

আমরা জানি যে হোমিওপ্যাথিতে রোগের নামে কোন ঔষধ নেই। তাই কাশির চিকিৎসাতেও লক্ষণ মিলিয়ে ঔষধ খেতে হবে। Aconitum napellus :- যে-কোন ধরনের কাশি হোক না কেন, যদি প্রথম থেকেই মারাত্মক আকারে দেখা দেয় অথবা কাশি শুরু হওয়ার দু’চার ঘণ্টার মধ্যে সেটি ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করে, তবে একোনাইট হলো তার এক নাম্বার ঔষধ। একোনাইটের রোগকে তুলনা …

গলার তিন সমস্যা

নাক, কান ও গলা শরীরের এ তিন অঞ্চলে বিভিন্ন ধরনের রোগব্যাধি হতে পারে। সাধারণ হাঁচি-সর্দি থেকে শুরু করে গলার ক্যানসার সবই আছে এ তালিকায়। স্বল্প পরিসরে সেসব রোগের কয়েকটি সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হলো টনসিলের ইনফেকশন : সবচেয়ে পরিচিত এ টনসিলের সমস্যা। এটি মূলত শিশুদের সমস্যা। বড়দেরও হয়। টনসিল সমস্যায় গলাব্যথা, খেতে গেলে ব্যথা, সামান্য জ্বর …