নাক বন্ধ হলে কি করবেন……..?

আমরা ফুসফুসে দুভাবে বাতাস নিতে পারি- নাক দিয়ে ও মুখ দিয়ে। তবে নাক নিয়ে নিঃশ্বাস নেওয়াটাই স্বাভাবিক। কখনো অতিরিক্ত অক্সিজেনের প্রয়োজন হলে বা নাক দিয়ে যথাযথ পরিমাণ বাতাস প্রবেশ করতে না পারলে নিঃশ্বাসের জন্য মুখও ব্যবহৃত হয়। নাক দিয়ে যখন বাতাস ফুসফুসে প্রবেশ করে তা নাকের ভেতরে থাকা ঝিল্লির মাধ্যমে কিছুটা পরিশোধিত হয়ে প্রবেশ করে। …

শীতে শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা * হাঁপানি

ডাঃ এস.জামান পলাশ শীতে ইনফ্লুয়েঞ্জা বেশি মাত্রায় দেখা যায়। এ রোগটি মূলত ভাইরাসজনিত। ঠা-ার অন্যান্য উপসর্গ ছাড়াও এ রোগের ক্ষেত্রে জ্বর ও কাশি খুব বেশি হয় এবং শ্বাসকষ্টও হতে পারে। এছাড়া ভাইরাসে আক্রান্ত দেহের দুর্বলতার সুযোগে অনেক সময় ব্যাকটেরিয়াও আক্রমণ করে থাকে। বিশেষ করে নাকের সর্দি যদি খুব ঘন হয় বা কাশির সঙ্গে হলুদ রঙের …

কোল্ড এলার্জি ***

ডাঃ এস.জামান পলাশ ঋতু বৈচিত্র্যের দেশ বাংলাদেশ। ঋতুর পরিবর্তনে আবহাওয়ারও পরিবর্তন হয়। আবহাওয়ার এই পরিবর্তনে আমাদের অনেকেরই স্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। সাধারণতঃ শীতকালে আমাদের দেশে বিভিন্ন বয়সের মানুষের শীতকালীন কিছু উপসর্গ দেখা দেয়, কোল্ড এলার্জি বা শীত সংবেদনশীলতা। আমরা দেখে থাকি শীত আসলেই অনেক শিশু বা বয়স্ক ব্যক্তি হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়েন …

শীতে ঠাণ্ডা থেকে রক্ষার ১৫ উপায়

প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ ঠাণ্ডা লাগলে গলায় খুসখুস ভাব, নাক-চোখ দিয়ে পানি পড়া, মাথা ভার হয়ে থাকা প্রভৃতি উপসর্গ দেখা দেবেই। সাধারণ সর্দি-কাশিতে এক সপ্তাহ পুরো অস্বস্তিতে থাকতে হয়। ওষুধপত্রে তেমন একটা কাজ হয় না। কারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করার মতো কার্যকর ওষুধ খুব একটা নেই। ঠাণ্ডা কিংবা সাধারণ সর্দি-কাশি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলতে …

অ্যালার্জিজনিত অ্যাজমা এবং হোমিওপ্যাথি

প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ অ্যালার্জিজনিত হাঁপানি সবচেয়ে বেশি দেখতে পাওয়া যায়। এ ধরনের হাঁপানি শ্বাসপথের শ্লেষ্মা ঝিল্লির অতি সংবেদনশীলতার জন্য হতে পারে। শ্লেষ্মা ঝিল্লির উত্তেজনা ঘটতে পারে নানাভাবে নানা দিক থেকে, যেমন¬ পরাগরেণু, নানাজাতের ছত্রাক ও ছাতা পড়া জিনিস ঘরের ভেতরের ধূলিকণা, কয়েক প্রকার খাবার, পোকামাকড়ের হুলের বিষ বা তাদের শরীরের কোনো অংশ। কোনো কোনো ক্ষেত্রে …

শীতকালীন হাঁপানি থেকে মুক্ত থাকুন

প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ আমাদের শ্বাসতন্ত্রের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে শরীরে জীবনীশক্তি আনে বাতাস। ফুসফুস দূষিত কার্বন ডাই-অক্সাইড শরীর থেকে বাইরে এবং বাতাসের অক্সিজেন রক্তে প্রবাহিত করে। শ্বাসতন্ত্রে কোনো ধরনের সমস্যা হলে এ প্রক্রিয়া ব্যাহত হতে পারে। শ্বাস-প্রশ্বাস প্রক্রিয়ায় ফুসফুস ও শ্বাসনালি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তাই এই অঙ্গের অতিসংবেদনশীলতা আমাদের স্বাভাবিক জীবনে ছন্দপতন ঘটায়। হাঁপানি বা অ্যাজমা …

অ্যাজমা কমানোর ২৫ মন্ত্র

ডাঃ এস.জামান পলাশ শীতের এ সময়টাতে বক্ষ্যব্যাধি রোগীদের ব্যাপারে যথেষ্ট সতর্ক থাকতে হয়। বিশেষ করে যাদের অ্যাজমা বা হাঁপানি রয়েছে তাদেরকে হতে হয় অতিযত্নবান। শুধু ডাক্তারের ওপর নির্ভর করলেই হবে না নিজেদেরকেও কিছু নিয়ম কানুন পালন করতে হবে। তাহলেই অ্যাজমা বা হাঁপানি নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে। অ্যাজমা কমানোর কিছু পরামর্শ দেওয়া হলো- ১. ধূমপান করবেন না। …

শীতকালে নাক, কান ও গলায় সমস্যা

প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ আমাদের দেশে এখন শীতকাল। শীতকালে প্রচুর পুষ্টিকর শাকসবজি, ফলমূল পাওয়া যায়। এ জন্য সাধারণত রোগব্যাধি কম হয়। যখন অতিরিক্ত শীত পড়ে ও শীতকে অবহেলা করা হয় তখন বিভন্ন রোগব্যাধি দেখা দিতে পারে। বিশেষ করে শিশু এবং বয়স্কদের শীতের প্রকোপ থেকে রক্ষা পাওয়ার প্রয়োজনীয় গরম কাপড় পরিধান করা উচিত। শীতকালে নাক, কান ও …

এক মায়ের দুই সন্তান অ্যালার্জি ও হাঁপানী

প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ শ্বাসকষ্টের কারণে যে রোগ হয়, সাধারণত তাকেই আমরা হাঁপানি বা অ্যাজমা বলে থাকি। মানুষের দেহের একটি দুঃসহ ও জটিল রোগ হচ্ছে হাঁপানি। সারা বিশ্বের লাখো মানুষ বর্তমানে এই রোগে আক্রান্ত। এই শীতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বিশেষ কিছু রোগ। শিশু থেকে শুরু করে প্রাপ্ত বয়স্ক এবং বৃদ্ধরাও যেকোনো সময় এই রোগে আক্রান্ত …